opennews.com.bd
  • | |
  • cnbangladesh.com
    cn.com
    cn.com
    cn.com
    cn.com
cnbangla.com
বিচিত্র সংবাদ

কুকুর খাওয়ার উৎসব


Date : 01-04-16
Time : 1451928745

cnbangladesh.com

কুকুর খাওয়ার উৎসব খুব জনপ্রিয় এবং পুরনো প্রথা। যোগাযোগের যুগান্তকারী বিভিন্ন ধরনের পদ্ধতি আবিষ্কারের পরও এখনো নিত্য নতুন ভিন্ন ধরনের সংস্কৃতি আর মানুষের সাথে পরিচিত হচ্ছি আমরা। অবশ্য এই ভিন্নধর্মী উৎসবটি বাংলাদেশের নয়, এটি অনুষ্ঠিত হয় চীনে। বাংলাদেশে একজন স্বাভাবিক মানুষের পক্ষে কুকুরের মাংস খাবার হিসেবে চিন্তা করাও সম্ভব নয়। আমরা আজকে যে প্রাচীন প্রথার সাথে পরিচিত হবো সেটা চীনে গ্রীষ্মকালে সবথেকে বড় সময়ের দিন উদযাপন করার জন্যে কুকুর এর মাংস বিভিন্ন স্টাইলে খাওয়া দাওয়া করা হয়। চীনের দক্ষিন অঞ্চলে ইয়্যুলিন শহরে বছরে একবার এই কুকুর ভক্ষন উৎসব হয়ে থাকে। সারা দেশ থেকে তো বটেই, সারা বিশ্ব থেকে কুকুর এর মাংস ভক্ষনকারী সকল রসনাবিলাসী চলে আসেন এখানে।


এই কুকুর খাওয়ার উৎসব এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যে, কোন কিছু দিয়েই এটি ঠেকানোর কথা কেউ ভাবতেও পারেন। এত জনপ্রিয়তার মধ্যেও বিভিন্ন প্রানী অধিকার আদায় আন্দোলনের অংশগ্রহনকারীরা সরকারের কাছে আবেদন করেছে এই উৎসব বন্ধ করার জন্য। চীনের প্রানী অধিকার আদায় আন্দোলন বিষয়ক এনজিও এই বিপুল পরিমান কুকুর হত্যা ও এর মাংস ভক্ষন উৎসব বন্ধ করার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেও সুফল পাচ্ছেনা। সাধারনত প্রতি বছর ২১জুন বিশ্বের সবথেকে বড় দিন হয়ে থাকে। আর এই দিনকে লক্ষ্য রেখে কর্তৃপক্ষ কুকুর খাওয়ার উৎসব এর আয়োজন করে। এই কুকুর খাওয়ার উৎসব কে লক্ষ্য করে চীনের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার কুকুর বিলাসী তাদের কুকুর নিয়ে হাজির হন এই উৎসবে। ইয়্যুলিন এর ঐতিহ্য অনুযায়ী কুকুর খাওয়ার উৎসব এর মূল আকর্ষন থাকে লিচু দিয়ে কুকুর এর মাংসের সাথে মদ মিশিয়ে খাওয়া। অবশ্য এই উৎসবের পিছনে কারন হলো গ্রীষ্ম পরবর্তী শীতের সময় যেন প্রত্যেকের শরীর সুস্থ থাকে। অংশগ্রহনকারীদের ধারনা গ্রীষ্মের সময় কুকুরের মাংস খেলে শীতের সিজনে বিভিন্ন ধরনের রোগ থেকে মুক্ত থাকা যায়। যদিও আয়োজন এবং অংশগ্রহনকারীদের এই অবাস্তব ধারনার কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

এবার আসি ভিতরের খবর নিয়ে। কুকুর খাওয়ার উৎসব অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনকারীদের একটি বিশাল ক্ষোভ রয়েছে প্রানী অধিকার আদায় আন্দোলন কর্মীদের উপরে। কারন তারা কুকুরের বাজার, কসাই খানা এবং বিভিন্ন শপিং সেন্টারে গিয়ে এর বিরুদ্ধে প্রচারপ্রচারনা চালিয়ে থাকে। ফলে তাদের এই বিরতিহীন আন্দোলনের কারনে চীনের বিভিন্ন অঞ্চলে অনুষ্ঠেয় এই অনুষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। মানুষও আস্তে আস্তে সচেতন হচ্ছে। মানুষজন এখন কুকুরকে বিড়ালের মতো পোষার দিকে ঝুকছে।

অবশ্য, পশু অধিকার আদায় আন্দোলন সংগঠনগুলো জানিয়েছে, এই বাচবিচার বিহীন কুকুরের মাংস খাওয়ার কারনে মানুষের শরীরে ক্ষতিকর জীবানু ঢুকছে। সবথেকে বড় সমস্যায় পড়ছেন বাড়ির লোকজন। অনেক বাড়ি থেকে তাদের আদরের পোষা কুকুর চুরি করে খেয়ে ফেলছে অনেকে। আর বাড়িতে পোষা কুকুরের রক্তে ক্ষতিকর জীবানু পাওয়া যায় যেটা মানুষের কিডনী, লাঞ্চ ও লিভার নষ্ট করার জন্য যথেষ্ট। এদিকে চীনা স্বাস্থ্য সংস্থায় কর্মরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, কুকুরের মাংস খেলে রোগ মুক্তিতো নয়ই বরংঞ্চ ভয়াবহ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি অনেক বেশী। কারন এ্ই উৎসবে একটা কুকুরেরও স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করেই খাওয়া হয়।

<strong> ভিডিও দেখুন</strong>
<iframe src="https://www.youtube.com/embed/589NAoC9Q6Y" width="550" height="350" frameborder="0" allowfullscreen="allowfullscreen"></iframe>





সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতিঃ এনামুল হক শাহিন
প্রধান সম্পাদকঃ সিমা ঘোষ
সম্পাদকঃ নরেশ চন্দ্র ঘোষ

ঠিকানাঃ
২৩/৩ (৪ তালা), তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০
ফোনঃ ০২৯৫৬৭২৪৫, ০১৯৭৭৭৬৮৮১১
বার্তা কক্ষঃ ফাক্সঃ ০২৯৫৬৭২৪৫, ০১৬৭৬২০১০৩০
অফিসঃ ০১৭৯৮৭৫৩৭৪৪,
Email: editoropennews@gmail.com



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ নুরে খোদা মঞ্জু
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ গাউসুল আজম বিপু
বার্তা সম্পাদকঃ জসীম মেহেদী
আইটি সম্পাদকঃ সাইয়িদুজ্জামান